দরিদ্র আইডিওলজী

বাংলাদেশের অধিকাংশ ধনীরাই উত্তরাধিকার সূত্রে বা ভাগ্যের কারনে ধনী। বাট দরিদ্রদের অনেকে মনে করে হারাম টাকা। এটা একটা দরিদ্র আইডিওলজী।

এক্সাম্পল, যাদের বাপদাদার জায়গা জমি ঢাকার উন্নত এলাকায় ছিল-তারা এমনিতেই কুটিপতি হয়ে গেছে। শুধুই হারামী কইরা বেশিদূর কেউ যাইতে পারে না। বড়জোর মিডলক্লাস হতে পারে।

ধনী সোসাইটির আরম্বরপূর্ণ কোন অনুষ্ঠান দেখলে বাংলাদেশের দরিদ্রশ্রেনী ধনীশ্রেনীকে “হারাম টাকা” বলে আক্রোমণ করে কথা বলে। বেশি দেখি হুজুরটাইপের লোকদের এইসব বলতে।
কিন্তু আমি ধনীদের ধনী হওয়ার অলোকিক একটা কারণ দেখছি-তা হলো উদারতা আর দানশীলতা। হোক সৎ বা অসৎ।

আল্লাহ তাদের এত এত দিচ্ছে-কিভাবে দিচ্ছে তা তারা নিজেরাও হয়তো জানে না ! এক্সাম্পল হিসেবে বিশ্বের সেরা ধণী ব্যক্তিদের দিকে তাকান – বিলগেটস এর দানশীলতা পড়তে পারেন।

Picture Source

ধনীলোকের আরম্বরপূর্ণ কাজকে অপচয়ভাবা ও ঘৃণা করার মাধ্যমে দরিদ্রশ্রেণীর একটা অংশ তৃপ্তি পায়। কিন্তু মনে মনে সে তার মতো ধনী হওয়ার বাসনা করে। ধনী ব্যক্তি যদি টাকা খরচ না করে তহলে সেটাই বরং সমালোচনা হওয়া উচিৎ। টাকা জমিয়ে রাখাটাইতো বড় অপচয়।

যে ধনী ব্যক্তি ব্যাংকে টাকা জমা না রেখে বড় দালান করলো সে তো সেই টাকাটা দরিদ্রকেই দিয়ে দিলো। কিভাবে? সেই টাকা কে কে পেল ভাবুন-

ইটভাটার মালিক ও শ্রমিক, সিমেন্ট কারখানা ও শ্রমিক, রড কারখানা ও শেখানকার শ্রমিক, ইঞ্জিনিয়ার, রাজ মিস্ত্রী,  রড মিস্ত্রী, কারেন্ট মিস্ত্রী, কল মিস্ত্রী, টাইলস মিস্ত্রী অনেক অনেক লোক।

আল্লাহ এভাবেই পৃথিবীকে ধনী-দরিদ্র দিয়ে সাঞ্জস্য করে রেখেছে। সেখানে আপনার অবস্থান নিজেই দেখে নিন। এইটা বুঝলে হয়তো হতাশা থেকে মুক্তি পাবেন।

বাংলাদেশের অধিকাংশ ধনীরাই উত্তরাধিকার সূত্রে বা ভাগ্যের কারনে ধনী। বাট দরিদ্রদের অনেকে মনে করে হারাম টাকা। এটা একটা…

Posted by Mahbub Tuto on Saturday, September 8, 2018

আরো পড়তে পারেন দরিদ্রের হীনমন্যতা