দিনে একটা কাজ করা

প্রতিদিন অনেকগুলো কাজ একসাথে করতে গিয়ে একটি বড় এবং সুন্দরকাজ করা হয়ে ওঠে না। এই ধরুন আমি প্রতি দিন অফিসে ঢুকে যা যা করি তার একটা তালিকা করা যাক-

  • ১. ই-মেইল চেক করা ও কয়েকটার রিপ্লাই সাথে সাথে দেওয়া। কয়েকটার জন্য কিছু কাজ করা যেমন কোন ডকুমেন্টেশন বা লিস্ট তৈরী করে পিপ্লাই দেওয়া।
  • ২. এরই মাঝে ফেসবুকে ঢু মারা। সেখানে কিছু লিংক ও ভিডিও্তেও ডুবে যাওয়া।
  • ৩. ফোন রিসিভ ও সাপোর্টের কাউকে পাঠানো।
  • ৪. সারভার বা রাউটারে কোন কাজ আসলে সেটা বেশি প্রায়োরিটি দিয়ে করা। কোন সমস্যায় পড়লে নেটে সার্চ দেওয়া। সার্চ দিতে দিতে হয়তো অন্য কোথাও ঠুকে যাওয়া।
  • রিমোট লোকেশনে কারো সমস্যা সমাধান।
  • ৫. ব্লগে ঢোকা, আগের লেখা দেখা, একটা আইডিয়া চলে আসলো। লেখা বা নোট করা বা মনে রাখা।
  • ৬. কোন একটা এপয়েনমেন্ট আছে বা অফিস পারচেজ আছে তা দিয়ে কিছু কাজ করা ইত্যাদি।

প্রত্যেকের হয়তো অনেক অনেক কাজ ও টাইম ম্যানেজমেন্ট আছে। এরকম ক্ষুদ্র ক্ষুদ কাজের ভীরে

  • ধারাবাহিক কোন কাজ করা হয়ে ওঠে না।
  • সুন্দর ও সৃজনশীল কাজ হয়তো করা হয় না।
  • বড় কোন কাজ সংক্ষেপিত করে ফেলি।
  • ছোট ছোট অনেক কাজ করার অভ্যাসের কারনে বড় কাজ করার সামর্থ হারানো। যেমন- কোন বড় বই পড়তে ভয় পাওয়া। কোন বড় আর্টিকেল লেখতে না পারা। বড় কোন টপিকের ভিডিও পর্যন্ত দেখার অক্ষমতা তৈরী হওয়া।
  • কোন কোন কাজ দরকারী আর করা না হয়ে ওঠা।

এই ধরনের সমস্যার সমাধানের জন্য একটা পদ্ধতি অবলম্বন করা যেতে পারে। একটা কাজ এবং অন্য কোন কাজকে স্থান না দেওয়া। কোন এক নির্ধারিত দিন বা সময়।

  • আমার কথাই ধরি- আমি আজ লিখবো। লেখা ছাড়া অন্য কিছু করবো না। হয়তো কফি মগে চুমুক দেব। হয়তো রেস্টুরেন্টে খাবো বা পরিবারকে কিছু সময় দিবো। কিন্ত ঐ দিন ফেসবুকে ঢুকবো না, ইমেইল চেক করবো না। লেখার প্রয়োজনে কোন সাইটে বা কোথাও সার্চ দিতে হলে দিবো। ব্যাপারটা এমন।
  • কোন একদিন একটা ভিডিও বানানোর কাজ হাতে নিলে সেটা নিয়েই সারা দিন ব্যস্ত থাকা। কাজ বোরিং লাগলে অন্য কাজে সুইচ না করা। বিশ্রাম, নামাজ, ইবাদত, জিকির বা খাওয়া দাওয়া করা। অন্য কোন কাজই করবো না। ভাববো-দুনিয়াতে আমার আসলে অন্য কাজ নাই।
  • এখন কথা হচ্ছে বেশিভাগ সময় আমরা কাজ করার ক্ষেত্রে অজুহাত খুজি। এটা ওটা নাই তাই এই কাজটা পরে করবো। এমনটা যাতে না হয় তাই উপকরণগুলো আগেই গুছিয়ে নেওয়া দরকার হবে।

আরো লেখাঃ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *